শিশুর ওজন বৃদ্ধি ও শিশু দ্রুত লম্বা হবে যে খাবারগুলো খেলে

63
শিশুর ওজন বৃদ্ধি

Foods that will make the baby gain weight and grow taller. অর্থাৎ যে সমস্ত খাবারগুলো নিয়মিত খেলে আপনার শিশুর ওজন বৃদ্ধি পাবে এবং শিশু দ্রুত লম্বা হবে। আপনার শিশু বেড়ে উঠবে খুব তাড়াতাড়ি। আপনার শিশুর খাবারের তালিকায় আপনি কোন ধরনের খাবারগুলো নিয়মিত রাখলে আপনার শিশুটি দ্রুত বেড়ে উঠবে এবং তার ওজন বৃদ্ধি পাবে।

অনেক মায়েরা তাদের বাচ্চাদের নিয়ে ভীষণ ভাবে উদ্বিগ্ন থাকেন যে, তাদের বাচ্চারা ঠিকমত খেতে চায় না। ওদের কোন স্বাস্থ্য নেই, শরীর অনেক চিকন এবং ওজনেও হালকা। অন্যসব স্বাস্থ্যবান বাচ্চাদের দেখে মন খারাপ করেন যে, অন্য বাচ্চাদের মত তার বাচ্চাটি কেন স্বাস্থবান হচ্ছে না। কেন ওদের মত বেড়ে উঠছে না।

এখানে আপনাকে বুঝতে হবে যে, আপনি আপনার বাচ্চাটাকে যে খাবারগুলো প্রতিদিন খাওয়াচ্ছেন সেটা তার জন্য সুষম হচ্ছে না। তার মানে হল আপনার বাচ্চার ওজন বৃদ্ধি ও বেড়ে ওঠার জন্য যে খাবারগুলো আপনার দেয়া দরকার ছিল সেটি আপনি বাচ্চাটাকে খাওয়াচ্ছেন না।

তাই আপনি আপনার বাচ্চাকে কোন ধরনের খাবারগুলো নিয়মিত খাওয়াবেন। কিভাবে খাওয়াবেন এবং সেই সম্পর্কে পুষ্টিবিদরা যা খাওয়াতে বলেন সেগুলো নিয়ে এখানে আলোচনা করা হল।

পুষ্টিবিদদের মতে শিশুদের ওজন বাড়ানোর ক্ষেত্রে প্রথমে আমাদেরকে কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে। চিকিৎসাশাস্ত্র অনুসারে প্রত্যেকেরই উচ্চতা ও ওজনের বৃদ্ধির জন্য একটি নির্দিষ্ট সুসম খাদ্য তালিকা রয়েছে। এই সুসম খাদ্য তালিকা অনুসারে কোন একটি শিশুর বয়স অনুযায়ী ওজন এবং উচ্চতা যদি ঠিক থাকে তাহলে বাচ্চার মায়েরা এই বিষয়ে চিন্তামুক্ত থাকতে পারেন।

তার মানে হল আপনি একজন মা হিসাবে আপনার বাচ্চাটাকে প্রতিদিন যে খাবার খাওয়াচ্ছেন, সেটা আপনার বাচ্চার জন্য সঠিক আছে। আপনার বাচ্চার বৃদ্ধির হার সঠিকভাবে হচ্ছে এবং সে সুস্থ ভাবে বেড়ে উঠছে। তার জন্য আর কোনো বাড়তি টেনশন বা খাবার দেয়ার আপনার কোন দরকার নেই।

কিন্তু অন্যদিকে যদি দেখা যায় এই সুষম খাদ্যের চার্ট অনুযায়ী যদি একটি শিশু ঠিকমতো বাড়ছে না বা বাচ্চার ওজন ঠিকমতো বাড়ছে না। সে ক্ষেত্রে কিন্তু অবশ্যই আপনাকে খেয়াল করতে হবে যে, আপনার শিশুটি পর্যাপ্ত পরিমাণে খাবার খাচ্ছে কিনা। যে খাবারগুলো আপনি খাওয়াচ্ছেন তাকে সেই খাবারগুলো আপনার শিশুর ওজন বৃদ্ধি এবং উচ্চতা বাড়াতে সাহায্য করছে কিনা।

চলুন তাহলে জেনে নেই শিশুর ওজন বৃদ্ধি এবং উচ্চতা বাড়াতে শিশুর খাবার তালিকায় আপনি কোন খাবারগুলো প্রতিদিন রাখতে চেষ্টা করবেন।

০১। সুষম খাবারঃ শিশুর ওজন বৃদ্ধি এবং উচ্চতা বাড়াতে প্রথমেই যে কাজটি আপনি করবেন সেটা হল প্রতিদিন আপনি চেষ্টা করবেন আপনার বাচ্চাকে সুষম খাবার খাওয়াতে। মানে তার খাবারে আপনি কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, মিনারেলস, ভিটামিন, ফ্যাট এবং পানি এই ছয়টি উপাদান যেন বাচ্চার খাবারের মধ্যে বাচ্চার প্রয়োজন অনুসারে থাকে।

এর পাশাপাশি আরেকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। সেটা হল শিশুকে কখনোই তাড়াহুড়ো করে কিংবা জোর করে খাওয়ানো যাবে না। প্রয়োজনে একটু ধৈর্য ধরে বিশ থেকে ত্রিশ মিনিট সময় নিয়ে শিশুর খাওয়া শেষ করুন।

এর চেয়ে বেশি সময় নিয়ে না খাওয়ানোর চেষ্টা করবেন। এই সময়ের মধ্যে একটি শিশু ঠিক যতটুকু খেতে চায় ঠিক ততটুকুই আপনি খাওয়াবেন। আর শিশুর খাবার টিকে যতটা সম্ভব আকর্ষণীয় এবং টেস্টি করার চেষ্টা করবেন।

কারণ দেখা গেল আপনার দেয়া খাবারটি শিশুটির কাছে স্বাদ লাগছে না। তখন যতো জোরই করেন না কেন শিশুটি কিন্তু খাবে না। তাই বাচ্চার খাবারটি সব সময় টেস্টি দেওয়ার চেষ্টা করুন।

০২। দুধঃ শিশুর ওজন বৃদ্ধি এবং উচ্চতা বাড়াতে প্রতিদিন আপনি চেষ্টা করবেন আপনার শিশুকে একগ্লাস খাঁটি গরুর দুধ তার খাবার তালিকায় রাখতে। কারণ দুধ আপনার বাচ্চার দেহে প্রোটিন, ক্যালসিয়াম এবং ফসফরাস সরবরাহ করবে। যেটা আপনার শিশুর ওজন ও উচ্চতা বাড়াতে সাহায্য করবে। শুধু মাত্র দুধই না যে কোনো দুগ্ধ জাতীয় খাবারেই প্রচুর প্রোটিন এবং ক্যালসিয়াম থাকে।

০৩। ডিমঃ প্রতি 100 গ্রাম ডিমে ১৪ গ্রাম কোলিন পাওয়া যায়। কোলিন আপনার শিশুর ব্রেইন ডেভেলপমেণ্ট করতে সাহায্য করবে। ডিমে প্রোটিন, ক্যালরি ও ওমেগা ০৩ পাওয়া যায়। এই উপাদানগুলো বাচ্চার জন্য অত্যন্ত জরুরি তার ওজন বৃদ্ধির জন্য। ফলে দ্রুত বাচ্চার শারীরিক ও মানসিক বিকাশ ঘটবে।

০৪। বাদামঃ বাদাম কে ব্রেইনের জন্য উৎকৃষ্ট খাবার বলা হয়। ব্রেইনের বিকাশের জন্য বাদামের কোন বিকল্প নেই। প্রতিদিন বিকালের নাস্তায় আপনার শিশুকে বাদাম খাওয়ান। যে কোনো বাদামই আপনি খাওয়াতে পারেন। যেমন- চিনা বাদাম, পেস্তা বাদাম, কাজু বাদাম ইত্যাদি। শিশুর ওজন বৃদ্ধি এবং উচ্চতা বাড়াতে তাই আপনার শিশুকে বাদাম খাওয়ান।

০৫। পাকা কলাঃ প্রতিদিন সকালে নাস্তার পর একটি করে কলা শিশুকে খাওয়ানোর চেষ্টা করুন। কারণ কলায় প্রচুর পরিমাণে আয়রন ও ভিটামিন- সি, ভিটামিন- বি ও পটাশিয়াম রয়েছে। পটাশিয়াম ব্রেইনকে শান্ত রাখতে সাহায্য করে। তাই শিশুর যথাযথ পুষ্টি এবং শিশুর ওজন বৃদ্ধি করতে প্রতিদিন একটি করে কলা খাওয়ানোর চেষ্টা করুন।

০৬। খেজুরঃ একটি খেজুরে প্রচুর পরিমাণে আয়রন ক্যালরি ও মিনারেলস থাকে। যা বাচ্চার দেহে শক্তি ও ওজন বাড়াতে সাহায্য করবে। তাই প্রতিদিন সকালে ও বিকালে মিলিয়ে তিন চারটি খেজুর খাওয়াতে পারেন বাচ্চাকে।

০৭। রঙিন শাকসবজিঃ শিশুর পরিপূর্ণ পুষ্টি ও সুস্বাস্থ্য গঠনে রঙিন শাকসবজির ভূমিকা অতুলনীয়। শাকসবজিতে প্রচুর আঁশ, ভিটামিনস ও মিনারেলস থাকায় শিশুর উচ্চতা এবং হজম শক্তি বৃদ্ধি পাবে। শিশুর ত্বক ভালো থাকবে, খাবারে রুচি বৃদ্ধি পাবে ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে। আর হজমশক্তি বৃদ্ধি পেলে শিশুটি বেশী বেশী খেতে পারবে। ফলে শিশুর ওজন বৃদ্ধি পাবে দ্রুত।

 ০৮। মাখনঃ এটি একটি মজাদার এবং সুস্বাদু হেলদি একটি খাবার। সব বাচ্চারাই মাখন পনির এগুলো খেতে খুব পছন্দ করে। এক্ষেত্রে যদি বাচ্চাকে পিনাট বাটার খাওয়াতে পারেন তাহলে ভালো হয়। তাহলে বাচ্চারা আরো মজা করে খাবে। প্রয়োজনে রুটির মধ্যে মাখন লাগিয়ে খাওয়াতে পারেন। মাখনে প্রচুর ক্যালোরি থাকায় শিশুর ওজন বাড়াতে সাহায্য করবে।

০৯। মুরগির মাংসঃ মুরগির মাংস প্রোটিনের উৎকৃষ্ট একটি উৎস। একটি বাচ্চাকে প্রোটিন যত বেশি দিবেন তার ওজন ও উচ্চতা কত দ্রুত বাড়তে থাকবে। মুরগির মাংস শিশুর পেশী গঠনে সাহায্য করে। তাই প্রতিদিন একবার আপনার বাচ্চার খাবারের তালিকায় মুরগির মাংস রাখতে চেষ্টা করুন।

চাইলে আপনি বিকালের নাস্তায় চিকেন ফ্রাই বানিয়েও খাওয়াতে পারেন। চিকেন সুপও খুব টেস্টি আর স্বাস্থ্যসম্মত একটি খাবার। চাইলে নুডুলস এর সাথে ছোট ছোট টুকরো করে মিশিয়ে শিশুকে খাওয়াতে পারেন।

১০। মিষ্টি আলুঃ শিশুর ওজন ও উচ্চতা বৃদ্ধিতে মিষ্টি আলু খুব উপকারী। যদিও এটি সব ঋতুতে পাওয়া যায় না। যখন পাওয়া যায় তখনই বাচ্চাকে সিদ্ধ করে বেশি বেশি মিষ্টি আলু খাওয়াতে পারেন। আবার বিভিন্ন রকম মিষ্টি আলুর রেসিপি বানিয়েও খাওয়াতে পারেন।

১১। মাছঃ শিশুর ওজন ও উচ্চতা বৃদ্ধিতে আপনার শিশুকে নিয়মিত মাছ খাওয়ান। বিশেষ করে সামুদ্রিক মাছে প্রচুর পরিমানে প্রোটিন এবং ভিটামিন- ডি থাকে। যা শিশুর উচ্চতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে।

আপনার শিশুকে এসব খাবারের পাশাপাশি আরও কিছু বিষয় আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে। আপনার শিশুকে বাহিরের জুস, চকলেট, চিপস, চুইংগাম ইত্যাদি একদম খাওয়াবেন না।

এগুলো বাচ্চাদের জন্য খুবই মুখরোচক খাবার। এগুলো খেলে বাচ্চারা ঘরের খাবার খেতে চাইবে না। তাই এগুলো পরিহার করে ঘরে তৈরি খাবার বা বিভিন্ন রেসিপি বানিয়ে খাওয়াতে চেষ্টা করুন। বিভিন্ন ফলের জুস আপনি ঘরেই বানিয়ে খাওয়াতে পারেন।

উপরের সমস্ত আলোচনা থেকে আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন যে, কোন খাবারগুলো আপনার শিশুর খাবারের তালিকায় রাখলে আপনার শিশুর ওজন এবং উচ্চতা দুটিই বৃদ্ধি পাবে। 

পূর্ববর্তী আর্টিকেলদাম্পত্য জীবন সুখী করার ১৮ টি কৌশল জেনে নিন।
পরবর্তী আর্টিকেলচুল পড়ার কারণ এবং এর সমাধান জেনে নিন

একটি মন্তব্য করুন

এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহপূর্বক আপনার নাম লিখুন