মেছতা দূর করার উপায় এর গোপন ফেইস প্যাক তৈরি করার গোপন টিপস। সহজেই বানিয়ে ফেলুন শুধুমাত্র ঘরোয়া পদ্ধতিতে প্রাকৃতিক উপাদান ব্যাবহার করে। বর্তমানে মেছতার সমস্যা আমাদের প্রত্যেকের কাছেই একটি জটিল একটি সমস্যা। এখন বিভিন্ন বয়সের মানুষেরই মেছতা হতে দেখা যায়। অনেকেই এর জন্য লজ্জায় মুখ লুকিয়ে রাখেন ও নানা রকমের মানুসিক যন্ত্রণায় ভুগেন।

আবার অনেকে অনেক রকম ভাবে চেষ্টা করছেন মেছতার দাগ দূর করার জন্য। কিন্তু তবুও মেছতা ভাল হচ্ছেনা। তাই তাদের জন্য চমৎকার ভাবে মেছতা দূর করার গোপন একটি ফেইস প্যাক এখানে খোলামেলা করে আলোচনা করা হয়েছে।

মেছতা দূর করার উপায় জানার আগে জেনে নিন মেছতা হবার কারনঃ

প্রথমেই আপনাকে জানতে হবে মেছতা কেন হচ্ছে। অল্প বয়সেই কেন মেছতার দাগ পড়ছে। তবে বিভিন্ন কারনে আমাদের মুখে মেছতার দাগ পড়তে পারে। যেমন-

একসময় দীর্ঘদিন যাবত মুখে প্রসাধন সামগ্রীর ব্যাবহার ও তার প্রভাব হল মুখে মেছতা পড়ার অন্যতম প্রধান কারন। এছাড়া বাইরের প্রচণ্ড গরম ও সূর্যের তাপের প্রভাব থেকেও মুখে মেছতা পড়ে।

আবার যে সমস্ত মহিলারা নিয়মিত জন্ম নিয়ন্ত্রণ পিল খান সেকারনেও মুখে মেছতা পড়ে থাকে। এছাড়া শরীরে হরমোনের তারতম্য ও থাইরয়েডের প্রবলেমের কারনেও মুখে মেছতা পড়ে। আবার বংশগত কারনেও মুখে মেছতা পড়তে পারে।

এছাড়া ত্বক অপরিস্কার থাকা, নিয়মিত পর্যাপ্ত পরিমানে পানি ও পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ না করা, প্রচণ্ড মানুসিক চাপ ও নিয়মিত ঘুম না হবার কারনেও মুখে মেছতা পড়ে।

তাই আমরা চাইলে ঘরে বসেই ঘরে থাকা উপাদান ব্যাবহার করেই এই মেছতাকে চিরতরে দূর করতে পারি। চলুন জেনে নেই ত্বক থেকে মেছতা দূর করার উপায় এর সেই গোপন ফেইস প্যাক।

মধু লেবু এবং এলভেরা জেলঃ গোপন এই ফেইস প্যাকটির আসল রহস্য লুকিয়ে আছে এই সবগুলো উপাদানের মধ্যে। কারন এই সবগুলো উপাদান ত্বক থেকে মেছতা সহ ত্বকের যেকোনো কালো দাগ তুলতে অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা পালন করে থাকে। বিশেষ করে মধু আমাদের ত্বক হতে যেকোনো দাগ রিমুভ করে ইনস্ট্যান্টলি ফর্সা ও সুন্দর করতে অত্যন্ত কার্যকর ভুমিকা রাখে।

আর লেবুকে বলা হয় প্রাকৃতিক ব্লিচ। এতে আছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন- সি। তাই মুখের দাগ দূর করতে লেবু খুবই কার্যকরী একটি ফল। এছাড়া মুখের ত্ব‌কের বলি রেখা দূর করে ত্বকের লাবন্যতা ফি‌রি‌য়ে আনা সহ ত্ব‌কের যে কোন ক‌ঠিন দাগ দূর কর‌তে পা‌রে অ্যাল‌ভেরা।

ব্যাবহার প্রণালীঃ প্রথমে পরিস্কার দেখে একটি পাত্র নিয়ে নিন। তারপর এক টেবিল চামুচ বেসন, এক টেবিল চামুচ মধু, আধা চামুচ লেবুর রস ও এক টেবিল চামুচ এলভেরা জেল নিয়ে সবগুলো উপাদান ভালকরে মিশিয়ে নিতে হবে যতক্ষণ না পর্যন্ত মিশ্রণটির মধ্যে একটা ক্রিমি ভাব না আসে। তারপর মিশ্রণটি বানানো হয়ে গেলে আপনার মেছতা পড়া দাগের উপর ম্যাসেজ করে করে ভালভাবে লাগিয়ে নিন। আপনি চাইলে সারা মুখেও এটা এপ্লাই করতে পারেন।

এভাবে মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে আধা ঘণ্টা পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন। তারপর যখন একটু খানি শুকিয়ে আসবে তখন পুনরায় মিশ্রণটিকে ৫-৭ মিনিট পর্যন্ত একটানা ম্যাসেজ করুন। এতে মিশ্রণটি আপনার ত্বকে ভালভাবে লাগবে। তবে আপনারা চাইলে এই মিশ্রণটির মধ্যে সামান্য পরিমানে হলুদের গুঁড়া মিশিয়ে নিতে পারেন। তাহলে ফেইস প্যাকটি আরও শক্তিশালী হবে এবং এটিই হবে একমাত্র মেছতা দূর করার উপায়।

এভাবে টানা এক সপ্তাহ ফেইস প্যাকটি নিয়মিত দিনে একবার করে মুখের মেছতার দাগের উপরে লাগাতে হবে। তারপর হতে ব্যাবহারের মাত্রা কমিয়ে সপ্তাহে তিন দিন ব্যাবহার করতে হবে। তখন মিশ্রণটির মধ্যে লেবুর রসের পরিমান বাড়িয়ে এক টেবিল চামুচ করে মিশিয়ে ব্যাবহার করতে হবে।

এই ফেইস প্যাকটি ব্যাবহারের পূর্বে আপনার মুখটি ভালকরে পরিস্কার করে নিয়ে তারপর লাগাতে হবে। প্রয়োজনে ফেইস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিবেন যেন মুখে কোন প্রকার অয়েলি ভাব না থাকে। খেয়াল রাখবেন ফেইস প্যাকটি যেন চোখে না লাগে।

সেজন্য দুই চোখের উপরে দুই টুকরা শসা বা আলু পাতলা আর গোল করে কেটে চোখের উপরে দিয়ে রাখুন। তবে এই ফেইস প্যাকটি মুখে লাগানোর পর কোন প্রকার নড়াচড়া ও কথা বলা হতে বিরত থাকতে হবে।

ফেইস প্যাক লাগানোর নির্দিষ্ট সময় শেষে সরাসরি পানি দিয়ে না ধুয়ে পাতলা বা মোলায়েম কাপড় ভিজিয়ে নিয়ে আস্তে আস্তে ঘষে ফেইস প্যাকটি তুলে নিতে হবে। এভাবে করেল ত্বকের জন্য ভাল হয়। তারপর নরমাল পানি দ্বারা মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।

ত্বক ভালকরে পরিস্কার করে ধুয়ে মুছে শুকিয়ে গেলে আপনার ত্বকের জন্য যেটা উপকারী সেই লোশন বা ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম সেটা দ্রুত লাগিয়ে নিবেন। চাইলে গোলাপজল দিয়েও মুখ ধুতে পারেন।

মেছতা দূর করার উপায় হিসাবে চমৎকার এই ফেইস প্যাকটি আপনি নিয়মিত ব্যাবহার করার ফলে আপনার ত্বক হতে চিরতরে মেছতার দাগ দূর হয়ে যাবে। ত্বকের যত্নে যুগ যুগ ধরে এই সমস্ত প্রাকৃতিক উপাদান ব্যাবহার হয়ে আসছে।

পূর্ববর্তী নিবন্ধমধু দিয়ে দ্রুত ত্বক ফর্সা করার উপায়
পরবর্তী নিবন্ধফেসবুক ভিডিও ডাউনলোড করার উপায়

একটি মন্তব্য প্রদান করুন

অনুগ্রহ করে এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে এখানে আপনার নাম লিখুন