মাত্র ৩০ দিনে চুল লম্বা ও ঘন করার সহজ উপায়।

210
চুল লম্বা ও ঘন
দ্রুত চুল লম্বা ও ঘন করার সহজ উপায়
Google search engine

মাত্র ৩০ দিনের মধ্যেই আপনার চুল লম্বা ও ঘন করার সহজ উপায় জেনে নিন। প্রত্যেকটি নারীর আসল সৌন্দর্যই হল চুলে। যার চুল যত বেশী লম্বা আর ঘন হবে সেই নারী দেকতেও ততটাই সুন্দরী হয়। তাই সব মেয়েরাই চায় তাদের চুল দ্রুত লম্বা ও ঘন হোক।

অনেকেই হয়তো বিভিন্ন রকম ভাবে চেষ্টা করছেন তাদের চুল লম্বা ও ঘন করার জন্য। কিন্তু চুল লম্বাতো হচ্ছেই না বরং উল্টা পাল্টা তেল বা প্রসাধনী ব্যাবহারের ফলে চুলও পড়ে কমে পাতলা হয়ে যাচ্ছে।

চুল লম্বা ও ঘন করতে তাই আপনাদের কথা ভেবে এখানে কয়েকটি পরীক্ষিত ঘরোয়া হোম রিমেডি বানিয়ে দেখানো হল। এগুলোর যে কোন একটি হোম রিমেডি ফলো করে নিয়মিত ব্যাবহার করে দেখুন অবশ্যই উপকার পাবেন।

১। হেয়ার অয়েলঃ চুলের পরিপূর্ণ যত্নে প্রথমেই একটি হোম মেইড হেয়ার অয়েল তৈরির টিপস দেখানো হল। যা ফলো করলে মাত্র এক সপ্তাহে আপনার চুল অনেক ঘন কালো লম্বা আর শক্ত হবে। আর কখনও চুলের জন্য আপনাকে কোন রকমের টেনশন করতে হবে না।

দ্রুত চুল লম্বা ও ঘন করার জন্য এই হেয়ার অয়েল টি বাড়িতে বানিয়ে আপনি মাত্র এক সপ্তাহ ব্যবহার করেই দেখুন। এটা অত্যন্ত কার্যকর একটি পদ্ধতি। চলুন তাহলে জেনে নেই কিভাবে ঘরে বসে আপনি এই হেয়ার অয়েলটি তৈরি করবেন।

প্রস্তুত প্রণালীঃ প্রথমে একটি পরিষ্কার শুকনা পাত্রে আধাকাপ খাঁটি নারিকেল তেল নিয়ে নিন। তারপর চার-পাঁচটি বড় সাইজের পেয়ারা পাতা ধুয়ে পরিষ্কার করে ছোট ছোট টুকরো করে কেটে নিন। আর লাগবে একটি পেঁয়াজ। পেঁয়াজ টি ভালো করে ছিলে নিয়ে কেটে ছোট ছোট টুকরো করে নিন।

এখন সবগুলো উপাদান একত্রে মিশিয়ে একটি প্যানে নিয়ে চুলার ওপর রেখে মিডিয়াম আঁচে দশ থেকে পনের মিনিট ধরে গরম করুন। আর অনবরত নাড়তে থাকুন যেন নিচে লেগে না যায়। এভাবে জ্বাল দেয়ার পাঁচ মিনিট পর এক টেবিল চামচ মেথি দানা ছড়িয়ে মিশিয়ে দিন।

তারপর পুনরায় জ্বাল দিন যতক্ষণ না পর্যন্ত সবগুলো উপাদানের ভেতর থেকে নির্যাস বের হয়ে না আসে। এভাবে পনের মিনিট জ্বাল দেয়ার পর চুলা থেকে নামিয়ে ভালকরে ঠান্ডা করে নিন। তারপর একটি ছাকনি দারা তেলটা ভালো করে ছেঁকে আলাদা করে নিন।

পেয়ারা পাতায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন- বি। যা দ্রুত চুলের পুষ্টি বৃদ্ধি ঘটাতে সাহায্য করে। তবে পেয়ারা পাতা সরাসরি চুলে দেয়া যায় না। তাই এটাকে জাল দিলে পরে এর ভেতর থেকে তার গুণাগুণ বের হয়। তখন ব্যবহার করতে হয়। পেয়ারা পাতা চুলের বৃদ্ধি ও চুলের গোড়া মজবুত করে তুলতে জাদুর মত কাজ করে।

আর আমলকীতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন- সি, আয়রন, প্রোটিন, পটাশিয়াম সহ ইত্যাদি অসংখ্য প্রাকৃতিক উপাদান। যা দ্রুত চুলের বৃদ্ধি, চুল পড়া বন্ধ, খুশকি দুর করা সহ কম বয়সে চুল পেকে যাওয়া রোধ করে। এছাড়া চুলের ঘনত্ব বৃদ্ধিতে ও চুল মজবুত করতে মেথির ভূমিকা অপরিসীম।

চুলের যত্নে অন্যান্য উপাদানের সাথে পেঁয়াজের রস ও খুবই উপকারী এবং প্রাচীনকাল থেকে চুলের যত্নে পেঁয়াজের ব্যবহার হয়ে আসছে। কারন পেঁয়াজের রস চুল পড়া কমায় ও চুলের গোড়া শক্ত করে। নিয়মিত পেঁয়াজের রস মাথায় দিলে মাথার ত্বকে এক ধরনের হরমোন উৎপাদন হয়। যা চুলকে দ্রুত বৃদ্ধি করে ও নতুন চুল গজায়।

এখন এই তেলের মধ্যে এক টেবিল চামচ কালো জিরা গুঁড়া করে মিশিয়ে রেখে দিন। ব্যাস এভাবে তৈরী হয়ে গেল চুল লম্বা ও ঘন করার সিক্রেট হোমমেইড হেয়ার অয়েল। এই তেল শুধু চুল লম্বাই করে না। চুলের গোড়া মজবুত করে চুল পড়াও কমায়।

ব্যবহার প্রণালীঃ দ্রুত চুল লম্বা ও ঘন করার এই তেলটি আপনি আপনার চুলের ঘনত্ব বা পরিমাণ বুঝে কম বা বেশী করে বানিয়ে নেবেন। আপনি প্রতিদিন গোসলে যাওয়ার দুই ঘণ্টা আগে অথবা রাতে শুতে যাওয়ার পূর্বে মাথার তালু থেকে শুরু করে মাথার সমস্ত চুলে তেল টি আঙ্গুল দিয়ে সেকশন করে করে লাগিয়ে নিবেন।

এভাবে একই নিয়মে নিয়মিত পুরা এক সপ্তাহ ব্যবহার করুন। আর মাত্র এক সপ্তাহ ব্যবহারেই আপনি পাবেন লম্বা ও ঘন কালো মজবুত চুল। আপনি এই তেলটি সংরক্ষণের জন্য একটি এয়ার টাইট কাঁচের বোতলে ভরে সর্বচ্চো দেড় মাস পর্যন্ত রাখতে পারেন।

২। লেবুর রসের হেয়ার মাস্কঃ চুলের যত্নে লেবু হল অসাধারণ একটি উপাদান। কারন লেবুতে থাকা সাইট্রিক এসিড, ক্যালসিয়াম আর ভিটামিন- সি চুলের পরিপূর্ণ পুষ্টি দিতে পারে। চুল পড়া কমায় এবং চুল ঘন করে দ্রুত চুলের বৃদ্ধি ঘটায়।

তাই আপনার চুল লম্বা ও ঘন করতে এ পর্যায়ে লেবুর রসের একটি হেয়ার মাস্ক বানিয়ে দেখানো হল। এই মাস্কটি অসাধারণ একটি কার্যকর একটি পদ্ধতি। চলুন দেখে নেই কিভাবে আপনি এটা তৈরি করবেন।

প্রস্তুত প্রণালীঃ প্রথমে একটি পরিষ্কার শুকনা পাত্রে তিন-চার চামুচ পানি নিয়ে নিন। তারপর এর মধ্যে এড করুন দুই চামুচ লেবুর রস। এখন এই দুটি উপাদান একত্রে ভাল করে মিশিয়ে নিন। ব্যাস তৈরি হয়ে গেল লেবুর রসের হেয়ার মাস্ক।

ব্যবহার প্রণালীঃ আপনার চুল লম্বা ও ঘন করার এই মাস্ক টি আপনার চুলের পরিমাণ বুঝে বানিয়ে নিতে পারেন। এটি আপনি গোসলে যাওয়ার দশ মিনিট আগে মাথার তালু থেকে শুরু করে মাথার সমস্ত চুলে আঙ্গুল দিয়ে সেকশন করে লাগিয়ে নিন। তারপর আপনার রেগুলার শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। আপনার চুল দ্রুত পুষ্টি পাবে এবং চুলের রুক্ষতা ও চুলের আগা ফাটা দূর হয়ে চুল হবে মসৃণ ও লম্বা।

৩। টক দই ও ডিমের মাস্কঃ চুল লম্বা ও ঘন আর সুন্দর করে তোলার জন্য আপনি হয়তো অনেক ঘরোয়া টিপস ফলো করে দেখেছেন। আবার হয়তো বা চিকিৎসকের ট্রিটমেন্টও নিয়েছেন। এর ফলে হয়তো কিছুটা উপকারও পেয়েছেন।

তবে বাজারে বিক্রিত প্রোডাক্টগুলো ব্যবহার করে আপনি হয়তো ইনস্ট্যান্ট কোন রেজাল্ট পেয়েছেন। কিন্তু এগুলো ব্যবহারের ফলে অনেক সাইড ইফেক্ট থাকে। তাই সবসময় চেষ্টা করবেন ন্যাচারাল রিমেডি গুলো ফলো করার।

কারণ ঘরোয়া ভাবে তৈরি এই সমস্ত হোম রিমেডি গুলোর কোন সাইড ইফেক্ট থাকেনা। আবার উপকারও পাওয়া যায় বেশ। কোন কিছুই আপনাকে বাজার থেকে কিনতে হবে না। হাতের কাছে থাকা উপাদান দিয়েই সহজে বানিয়ে নিয়ে ব্যবহার করা যায়।

তবে সবার জন্য সব টিপস কিন্তু এক হয় না। কারন একেক জনের চুল একেক ধরনের হয়ে থাকে। তাই প্রত্যেকেই তাদের চুলের ধরন বুঝে চুলের রিমেডি ব্যবহার করা উচিত।

এখন এখানে যে ঘরোয়া রেমেডি তৈরি করে দেখানো হয়েছে। সেটা ঘরে বসে আপনার চুলে ব্যাবহার করলে অনেক উপকার পাবেন আশা করি। চুল লম্বা ও ঘন করতে এটা খুব কার্যকরী একটি টিপস।

এখানে আপনার চুলকে ঘন কালো ও লম্বা করার তেমনই একটি ঘরোয়া উপায়ে শেয়ার করা হল চলন কিভাবে আপনি এটি তৈরি করবেন ও ব্যবহার করবেন জেনে নেই এটি ব্যবহারে অসাধারণ ফল পাওয়া যায়।

প্রস্তুত প্রণালীঃ প্রথমে একটি কাচের পাত্রে বা বাটিতে ১০০ গ্রাম টক দই নিয়ে নিন। আপনার চুল যদি বেশি ঘন আর লম্বা হয় তাহলে আরো বেশি টক দই নিতে পারেন। টক দই এ রয়েছে চমৎকার প্রাকৃতিক উপাদান। যা চুলকে স্থায়ী ভাবে লম্বা করতে সাহায্য করে। কারণ এর ফ্যাটি এসিড চুলের দ্রুত বৃদ্ধি ঘটায়।

এখন এই টক দই এর সাথে এড করুন একটি সম্পূর্ণ ডিম। যদি কেউ চুলে ডিমের ব্যাবহারে সমস্যা মনে করেন। তারা ডিম এর পরিবর্তে সম পরিমান অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারেন।

এখন এর মধ্যে একটি লেবুর অর্ধেকটা চিপে তার রসটুকুন দিয়ে দিন। এখন এগুলোকে একত্রে ভাল করে মিশিয়ে নিতে হবে। তবে উপাদানগুলোর মিক্সটা এমন ভাবে করুন যেন একটা ক্রিমি ভাব চলে আসে। ব্যাস তৈরি হয়ে গেল চুল লম্বা ও ঘন করার বিশেষ হেয়ার মাস্ক।

এই বিশেষ হেয়ার মাস্ক টি শুধু আপনার চুলকে লম্বাই করবে না বরং এর সাথে সাথে আপনার চুলের খুশকি ও চুলের রুক্ষতাকে দূর করে দিবে। এর সাথে সাথে হেয়ার স্কেল্প এর হেলথ কেউ ইমপ্রুভ করবে। যার ফলে স্বাস্থ্যবান চুল গ্রো করবে। আর আপনি পাবেন ঘন কালো লম্বা চুল।

ব্যবহার প্রণালীঃ বিশেষ এই হেয়ার মাস্ক টি ব্যাবহারের আগে আপনার চুলকে কয়েকটি অংশে ভাগ করে বা আলাদা সেকশন করে নিন। তারপর চুলের স্কেল্প থেকে শুরু করে চুলের শেষ মাথা পর্যন্ত সুন্দর করে ঘষে লাগিয়ে নিন।

এভাবে মিশ্রণটি দ্বারা আপনার চুলের পুরো অংশ কভার করে নিতে হবে। এভাবে চুলে রিমেডি টি লাগানোর পর আধা ঘন্টা রেখে দিন। তারপর আপনার যে কোনো একটি রেগুলার শ্যাম্পু দ্বারা চুল ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে হেয়ার মাস্ক বানিয়ে আপনি মাসে একবার করে ব্যবহার করুন। দেখবেন আপনার চুল পড়া কমিয়ে আপনার চুলকে অনেক ঝলমলে ও লম্বা করে তুলবে।

৪। এক্সট্রিম হেয়ার গ্রোথ অয়েল এবং প্যাকঃ মাত্র এক মাসের মধ্যে আপনার চুল হাঁটু পর্যন্ত লম্বা ও ঘন করার টিপস এখান আপনাদের সাথে শেয়ার করা হল। আমরা অনেকেই নিজের পাতলা চুল নিয়ে নানা রকম টেনশন করি। একদিকে যেমন চুল অনেক পাতলা অপরদিকে চুল বড় হয় না।

প্রত্যেকটি নারীর একটি আকাঙ্ক্ষা থাকে যে, তার চুলগুলো যেন ঘন কালো আর ঝলমলে লম্বা হোক। আর প্রিয়জনের মুখটা বাতাস হলেই যেন চুলে ঢেকে যাক। কিন্তু কোনভাবেই যখন সেই চুল হালকা-পাতলা আর ছোটই থেকে যায়।

যখন বিভিন্ন প্রকার ট্রিটমেন্ট করেও কোন ফল পাচ্ছেন না। তাদের জন্য এখানে এমন একটি হেয়ার গ্রোথ ফর্মুলা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। যা ব্যবহারে আপনার মাথার চুল মাত্র ত্রিশ দিনের মধ্যেই ঘন কালো রেশমি এবং লম্বা হয়ে যাবে।

এছাড়া এই ট্রিটমেন্ট টি ব্যবহার করলে আপনার চুলের অন্যান্য কোন সমস্যা থাকলেও তা সেরে যাবে। চলুন জেনে নেই কিভাবে বাড়িতে বসেই আপনার চুলের বৃদ্ধির জন্য এই উপাদানটি তৈরি করবেন।

আমরা এই ট্রিটমেন্ট টি দুটি ধাপে সম্পন্ন করব।

  • এক্সট্রিম হেয়ার গ্রোথ অয়েল এবং
  • এক্সট্রিম হেয়ার গ্রোথ প্যাক।

এক্সট্রিম হেয়ার গ্রোথ অয়েলঃ

আমাদের প্রথম স্টেপ অর্থাৎ এক্সট্রিম হেয়ার গ্রোথ অয়েল টি তৈরি করতে দরকার হবে মেথি এবং কালোজিরা। চুলের যত্নে মেথি খুব উপকারী একটি পুষ্টিকর উপাদান। মেথিতে বিদ্যমান প্রোটিন, আয়রন, পটাশিয়াম, ভিটামিন আমাদের চুল পড়া বন্ধ করে, খুশকি থেকে মুক্তি দিতে পারে এবং চুলের বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

অপরদিকে কালজিরা হচ্ছে প্রাকৃতিক মহৌষধ। শরীরের বিভিন্ন রোগ সারানোর পাশাপাশি চুলের জত্নেও কালজিরার ভূমিকা অপরিসীম। এর পুষ্টিগুণ ও স্বাস্থ্যর উপকারিতা সম্পর্কে আমরা সবাই জানি। কালজিরার তেল চুলের গোঁড়া মজবুত করে নতুন গজানো এবং চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। এছাড়া মাথার ত্বকের শুষ্কতা কমিয়ে চুল ঘন কালো মজবুত ও লম্বা করতে সাহায্য করে।

প্রস্তুত প্রণালীঃ প্রথমে তিন চামুচ মেথি নিয়ে সেগুলো ব্লেন্ডারে দিয়ে ব্লেন্ড করে পাউডার করে নিতে হবে। তারপর তিন চামুচ কালোজিরা নিয়ে সেটাকেও একই কায়দায় ব্লেন্ডারে দিয়ে গুড়া করে পাউডার বানিয়ে নিতে হবে।

তারপর একটি কাঁচের বোতলে ৫০ মিলি ক্যাস্টর অয়েল নিন। ক্যাস্টর অয়েলে রয়েছে এন্টিঅক্সিডেন্ট যা চুলের পুষ্টি ও স্বাস্থ্য ঠিক রাখে। ক্যাস্টর অয়েল চুলের স্ক্যাল্পে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে।

আরও নিতে হবে ৫০ মিলি ১০০ পার্সেন্ট খাঁটি এক্সট্রা ভার্জিন নারিকেল তেল। আপনি কিভাবে ঘরে বসেই এই এক্সট্রা ভার্জিন নারিকেল তেল তৈরি করতে পারেন তার একটি পূর্ণাঙ্গ আর্টিকেল এই ওয়েব সাইটে দেয়া আছে। চাইলে এখানে ক্লিক করে দেখে আসতে পারেন।

এখন এই উভয় তেলের মিশ্রণের মধ্যে দুই চামুচ করে মেথি পাউডার ও কালোজিরার পাউডার মিশিয়ে ভালো করে নাড়ুন। তারপর সবার শেষে এর মধ্যে ১০ থেকে ১৫ ফোঁটা রোজমেরি এসেনশিয়াল অয়েল দিয়ে বোতলের মুখ ভালো করে লাগিয়ে কিছুক্ষণ ঝাঁকিয়ে নিন। রোজমেরি এসেনশিয়াল অয়েল ত্বকের যত্নে যেমন উপকারী তেমনি মাথার ত্বক ও চুলের যত্নেও অনেক উপকারী।

এভাবে ঝাঁকিয়ে নিলে সবগুলো উপাদান একটির সাথে আরেকটি ভালো করে মিশে যাবে। ব্যাস এভাবে তৈরী হয়ে গেল আমাদের এক্সট্রিম হেয়ার গ্রোথ অয়েল। এইভাবে তেল বানিয়ে আপনি সর্বোচ্চ এক মাস পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারবেন।

ব্যবহার প্রণালীঃ আপনার চুল লম্বা ও ঘন করতে এই এক্সট্রিম হেয়ার গ্রোথ অয়েল সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন ব্যাবহার করতে হবে। আপনি রাতে শুতে যাওয়ার আগে আঙুল দিয়ে চুলের গোড়া থেকে শুরু করে চুলের আগা পর্যন্ত ঘষে ঘষে মেসেজ করে লাগিয়ে নিন।

এভাবে সারারাত রেখে পরদিন সকালে আপনার ব্যবহার্য রেগুলার শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এভাবে এক টানা একমাস এই তেল ব্যবহারে আপনার চুল আগের চেয়ে অনেক ঝলমলে নরম কোমল সিল্কি আর লম্বা হয়ে যাবে।

এক্সট্রিম হেয়ার গ্রোথ প্যাকঃ

চুল লম্বা ও ঘন করার এই এক্সট্রিম হেয়ার গ্রোথ প্যাকটি তৈরি করতে আমাদের লাগবে অ্যালোভেরার পাতা বা ডাল। চুলের যথাযথ পুষ্টি ও চুলের বৃদ্ধিতে অ্যালোভেরা খুব ভালো কাজ করে। তাই প্রথমে একটি অ্যালোভেরা হতে তার থেকে সম্পূর্ণ জেল বের করে নিতে হবে। মোটামুটি তিন থেকে চার চামচ অ্যালোভেরা জেল হলেই হবে।

প্রস্তুত প্রণালীঃ এখন এই অ্যালোভেরা জেলটুকুন ব্লেন্ডারে দিয়ে ব্লেন্ড করে নিয়ে তার সাথে দুই চামুচ মেথি পাউডার, দুই চামুচ কালোজিরা পাউডার, দুই চামুচ সাদা টক দই এবং দুই চামুচ খাঁটি নারিকেল তেল মিশিয়ে ভালো করে নেড়ে নিন।

তারপর সবশেষে যোগ করুন চারটি ভিটামিন- ই ক্যাপসুল। এখন সবগুলো উপাদান ভালো করে মিক্স করে নিতে হবে। ব্যাস এভাবেই তৈরী হয়ে গেল এক্সট্রিম হেয়ার গ্রোথ প্যাক।

ব্যবহার প্রণালীঃ এখন আপনার চুল লম্বা ও ঘন করতে তৈরি করা এই মিশ্রণটি আঙুলের সাহায্যে চুলের গোড়া থেকে চুলের আগা পর্যন্ত ভাল করে চুলে লাগিয়ে এক ঘন্টা পর্যন্ত রাখুন। তারপর প্রথমে উষ্ণ গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তারপর আপনার রেগুলার শ্যাম্পু দ্বারা চুল শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

চুল লম্বা ও ঘন করতে এই প্যাকটি সপ্তাহে মাত্র একবার ব্যবহার করুন। এভাবে একটানা এক মাস পর্যন্ত নিয়মিত ব্যবহার করুন। তাহলে আপনার চুল অনেক ঝলমলে কমল আর লম্বা হতে থাকবে।

আপনার দ্রুত হেয়ার গ্রোথ ট্রিটমেন্টের জন্য এই সবগুলো উপাদান দারুন কাজ করে। তাই নিয়ম মেনে পুরো একমাস বাড়িতে ব্যবহার করে নিজেই দেখুন এর রেজাল্ট। এত ভাল রেজাল্ট পাবেন যে আপনি নিজেই অবাক হয়ে যাবেন।   

দ্রুত চুল লম্বা ও ঘন করতে আরও কিছু পরামর্শঃ

দ্রুত চুল লম্বা ও ঘন করলেই হবেনা। এর জন্য চাই বিশেষ যত্ন। তাই আপনার চুল যত বেশী লম্বা আর ঘন হবে চুলের যত্নও ততটা বেশী করে করতে হবে। তবেই আপনার চুল ভাল থাকবে। তাই চুলে নিয়মিত তেল দিয়ে ভালকরে আঁচড়িয়ে সুন্দর পরিপাটী করে রাখতে হবে।

চুলে নিয়মিত শ্যাম্পু করতে হবে। আর বাইরে গেলে প্রয়োজনে মাথায় হিজাব ব্যাবহার করুন। এতে আপনার চুলে ধুলা ময়লা পড়ে চুল নষ্ট হবে না এবং চুল ভাল থাকবে।

নিয়মিত পর্যাপ্ত পানি পান ও ঘুম শরীরের ও মাথার ত্বকের যেকোনো সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। তাই দ্রুত চুল লম্বা ও ঘন আর সুন্দর সিল্ক করতে এবং এটা দীর্ঘদিন ধরে রাখতে এই নিয়মগুলো অবশ্যই মেনে চলুন।

Google search engine
পূর্ববর্তী আর্টিকেলপ্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায় এবং গোপন নাইট ক্রিম
পরবর্তী আর্টিকেলঠোটের কালো দাগ দূর করুন মাত্র পাঁচ মিনিটে

একটি মন্তব্য করুন

এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহপূর্বক আপনার নাম লিখুন